মোবাইল অ্যাপ পেতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন | নিজের এলাকার খবর জানাতে হোয়াটসঅ্যাপ করুন 9232119011
logo
Breaking News

সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট চিকিৎসা ও সচেতনতা

2022-09-27 22:31:42
কলকাতা সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ স্লাইডার সাম্প্রতিক পোস্ট মেডিকেল
সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট চিকিৎসা ও সচেতনতা

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: নাগরিকদের মানুষের জীবন বাঁচানোর যোগ্য করে তুলতে অ্যাপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটালস, কলকাতা আজ সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হওয়া সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করল। সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট এমন এক অসুখ যাতে হৃদপিণ্ডের ইলেকট্রিক সার্কিটগুলো গোলমাল করে এবং হৃদস্পন্দন হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়। সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হওয়া মানুষ আচমকা অজ্ঞান হয়ে যান। এ জিনিস যে কোনো মানুষেরই হতে পারে, এমনকি অ্যাথলিটদের মত সুস্থ সবল মানুষেরও।

হৃদপিণ্ডের ধমনীতে ব্লকেজ থাকার জন্য যে হার্ট অ্যাটাক হয় তাতে রোগীর বুকে ব্যথা হয়, শ্বাসকষ্ট, অস্বস্তি হয়, গা গুলোয় এবং প্রচণ্ড ঘাম হয়। এমনকি তিনি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধও করতে পারেন এবং নিয়ে যাওয়ার সময়ও থাকে। কিন্তু সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে, এটা একেবারেই আচমকা ঘটে এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রোগীর মধ্যে কোনো রোগের লক্ষণই দেখা যায় না। সুতরাং রোগীর চারপাশে থাকা লোকেরা একমাত্র তাঁকে সচেতন করেই তাঁর জীবন বাঁচাতে পারেন।

কারোর শ্বাস প্রশ্বাস বা হার্টবিট বন্ধ হয়ে যাওয়ার মত এমার্জেন্সি দেখা দিলে যে জীবনদায়ী কৌশল কাজে আসে তা হল কার্ডিও-পালমোনারি রিসাসিটেশন (CPR)। একজন রোগীকে CPR দিতে যাচ্ছেন এমন প্রশিক্ষণবিহীন ব্যক্তির প্রতি আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের পরামর্শ হল, প্যারামেডিকরা পৌঁছনো পর্যন্ত মিনিটে ১০০ থেকে ১২০ বার পর্যন্ত জোরে জোরে এবং দ্রুত বুকে চাপ দিন। যদি একজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ব্যক্তি রোগীর পালস না পান এবং নিশ্বাস পড়ছে না বোঝেন, তাহলে অবশ্যই ১০ সেকেন্ডের মধ্যে ৩০ বার বুকে চাপ দিয়ে CPR করতে হবে। তারপর দুটো রেসকিউ ব্রেথ দিতে হবে। এই ব্যবস্থা প্রাপ্তবয়স্ক ও শিশুদের CPR দরকার হলে প্রযোজ্য কিন্তু নবজাতকদের (৪ সপ্তাহ বয়স পর্যন্ত) বেলায় প্রযোজ্য নয়।

এই বিষয়ে *ডাঃ আফতাব খান, কনসালট্যান্ট কার্ডিওলজিস্ট অ্যান্ড ইলেকট্রো ফিজিওলজিস্ট, অ্যাপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটালস, কলকাতা*, বলেন _“হার্ট যখন হঠাৎ থেমে যায় তখন মস্তিষ্ক, যা শরীরটাকে চালানোর জন্যে সবচেয়ে জরুরি অঙ্গ, সেটা আর রক্ত পায় না। আর মস্তিষ্ক যদি ৩ মিনিটও রক্ত না পায় তাহলেই স্থায়ী ক্ষতি হয়ে যেতে পারে, যাকে আমরা কোমা নামে চিনি। আর ১০ মিনিটের মধ্যে রোগী মারা যেতে পারে। যেহেতু ডাক্তার ডাকা বা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার মত সময়ও থাকে না, সেহেতু রোগীর পাশে যাঁরা থাকেন তাঁদেরই রোগীকে বাঁচানো জরুরি।”_

সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট সম্পর্কে সচেতনতা তৈরির উদ্যোগ সম্পর্কে ডাঃ সুরিন্দর সিং ভাটিয়া, ডিএমএস, অ্যাপোলো মাল্টিস্পেশালিটি হসপিটালস*, কলকাতা, বললেন _“ভারতে ১ মিলিয়ন মানুষ সাডেন কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে আক্রান্ত হন এবং প্রতি ঘন্টায় এই শহরের প্রায় দুজন আক্রান্ত হন। আমাদের লক্ষ্য মানুষকে শেখানো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া পর্যন্ত ওইসব রোগীদের চিকিৎসা কেমন করে করতে হবে।”

Latest tweets

Social Media


Download Android App
About Us

Kolkata Prime Time আমাদের নিউজ পোর্টাল সর্বশেষ প্রস্তাব ও ব্রেকিং নিউজ হয়.

Owner : DIBYENDU GHOSAL

স্বত্বাধিকারী : দিব্যেন্দু ঘোষাল

Contact: 9232119011

E-mail : kolkatapritime@gmail.com

Address :

Kolkata Prime Time, S.P. PALLY, REGENT PARK, KOLKATA- 700093

©️ সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

Copyright 2019 | All Right Reserved by Kolkata Prime Time Group